সাম্প্রতিক সংবাদ

সিলেটে কিডনী আক্রান্ত তাপস সবার সহযোগিতা নিয়ে বাচঁতে চায়

প্রকাশিত: ৪:২৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৬, ২০২০

সিলেটে কিডনী আক্রান্ত তাপস সবার সহযোগিতা নিয়ে বাচঁতে চায়

চায়ের কাপ হাতে নিয়ে দোকানে দোকানে ফেরি করা কিশোর তাপস দাশ। অভাবের কারণে স্কুলেরে বারান্দায় ও যেতে পাড়েনি সে। বয়স বেশি নয় ১৪-১৫ হবে। এক সময় সবই ছিল তার। কারণ বসত ছোটবেলায়ই তাপসের বাবা মা’র সংসার ভেঙ্গে যায়। পরে তার বাবা ছেড়ে চলে যায়। কিছুদিন মা আগলে রাখলেও অবশেষে মাও বিয়ে করে নেয় অন্য আরেক জনকে। বর্তমানে তাপসের অভিবাবক হিসেবে আছে একমাত্র নানি। বিটা-বাড়ি বলতে নেই কিছুই। তাদের পেটের তাগিদে তাপস কাজ করতেন একটি চায়ের দোকানে। এ টাকা দিয়েই চলত দাদী-নাতীর সংসার।

দীর্ঘদিন যাবত কিডনি জটিলতা রোগে ভুগছে তাপস। এই সমস্যা নিয়েই চায়ের দোকানে কাজ করে আসছে সে। বর্তমানে কাজ করার ক্ষমতাটুকু নেই তার। চিকিৎসার অভাবে বিচানায় শুয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লরছে সে। তার চিকিৎসার জন্য প্রায় একলক্ষ টাকা ধরকার। একমাত্র উপার্জন দাতা তাপস নিজেই। এমনকি তাপসের নানীও বলছে চিকিৎসার খরছ জোগানো তার পক্ষে অসম্ভব হয়ে পরেছে। নিরুপায় হয়ে চিকিৎসার জন্য বিত্তবানদের সহযোগিতা চাচ্ছেন তাপস। তাপস দাশ মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার রাধানগরে বসবাস করে। তাপসের নানী সরদারানী বলেন, তাপস অসুস্থ হয়ে পড়ায় ঘরে অভাব-অনটন লেগেই আছে। আর একমাত্র উপার্জন দাতা ছিল তাপস। কিন্তু তাপস অসুস্থ হয়ে এখন বিচানায় শুয়ে দিন কাটাচ্ছে। এত ঘরের উপার্জনের রাস্তা একেবারেই বন্ধ হয়ে গেছে। এখন আমরা কোন রকম ভাবে খেয়ে না খেয়ে বেচেঁ আছি। তাপসকে সুস্থ করতে ডাক্তার বলছে ১ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। কিন্তু এত টাকা চিকিৎসার জন্য পাব কোথায়। যদি বিত্তবানরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় তা হলে আমার নাতী তাপস আবার সুস্থ হয়ে উঠবে। তাপসের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা করতে পারেন বিকাশের মাধ্যমে। তাপসের (অভিভাবক) নানি’র ব্যক্তিগত বিকাশ নম্বর- (০১৭৬৬-৭৫৫৩৯২)।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ